Header Ads

বাংলাদেশের ত্রাস হলেন মায়াঙ্ক আগরওয়াল, করলেন কেরিয়ারে দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি


সকাল দেখেই বোঝা যায় দিনটা কেমন যাবে! মায়াঙ্ক আগরওয়ালকে সকাল থেকেই দেখে বোঝা যাচ্ছিল দিনের কোনও এক সময় তাঁর নামের পাশে বড় রান লেখা থাকবে। হলও তাই। কেরিয়ারে সবে মাত্র আটটি আন্তর্জাতিক টেস্ট খেলেছেন। এরই মধ্যে দুটি ডাবল সেঞ্চুরি করে বসে রয়েছেন মায়াঙ্ক। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সিরিজের প্রথম টেস্টে তিনি খেললেন ২৪৩ রানের অনবদ্য ইনিংস। ইন্দৌরে বিরাট কোহলি খাতা খুলতে পারেননি। রান পাননি রোহিত শর্মাও। সেই আক্ষেপ যেন পুষিয়ে দিলেন মায়াঙ্ক। হোলকার স্টেডিয়ামে মহম্মদ শামির সঙ্গে তিনিও হয়ে উঠলেন নায়ক। বিশাখাপত্তনমে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন মায়াঙ্ক। এক মাসের মধ্যে ফের ডাবল সেঞ্চুরি! যেন স্বপ্নের ফর্মে রয়েছেন তিনি। 
চেতেশ্বর পুজারা আউট হওয়ার পর ভারতীয় ইনিংস এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব পড়েছিল রাহানে ও মায়াঙ্কের উপর। দুজনে দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করলেন। চতুর্থ উইকেটে মায়াঙ্ক-রাহানে মিলে খেললেন ১৯০ রানের পার্টনারশিপ। কেরিয়ারের ২১ নম্বর হাফ সেঞ্চুরি করলেন রাহানে। রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, চেতেশ্বর পুজারা, অজিঙ্ক রাহানে। ভারতীয় দলের চারটি বড় উইকেট তুলে বাংলাদেশের নায়ক পেসার আবু জায়েদ। সকাল থেকেই তাঁকে খেলতে সমস্যায় পড়েছিলেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। বাংলাদেশের আর কোনও বোলার আবু জায়েদের মতো কার্যকরী ভূমিকা নিতে পারেননি।
গত পাঁচটি ইনিংসের মধ্যে এটি দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি মায়াঙ্কের। ৫৫, ২১৫, ১০৮, ১০, ২৪৩- মায়াঙ্কের গত পাঁচটি ইনিংসের রান যথাক্রমে এমনই। অর্থাত্ গত পাঁচটি ইনিংসের মধ্যে চারটিতেই বড় রান করেছেন তিনি। টেস্টে ভারতীয় দলের ওপেনিং নিয়ে সমস্যা হয়তো মায়াঙ্ক মিটিয়ে দিতে চলেছেন। এদিকে, প্রায় দুবছর পর ঘরের মাঠে শূন্য রানে আউট হলেন কোহলি। ঘরের মাঠে এই নিয়ে তৃতীয়বার খালি হাতে ফিরলেন ভারতীয় অধিনায়ক। এর আগে ২০১৭ সালে কলকাতায় শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে শূন্য রানে আউট হয়েছিলেন তিনি। এই নিয়ে কেরিয়ারে ১০ বার শূন্য রানে আউট হলেন বিরাট কোহলি। 

No comments

Powered by Blogger.